যেমন কর্ম তেমন ফল

           

প্রত্যেক কর্ম অনুযায়ী ফল পাওয়া যায়। ভালো কর্মফল ভালো আর খারাপ কর্মের ফল খারাপ। এটা একটা সত্য কথা জেনেও আমরা কর্মের এ ব্যাপারে উদাসীন। প্রত্যেক পিতা-মাতার জানা দরকার যে , ভালো কর্মের ভিতরে আল্লাহর রহমত রয়েছে। তাই নিজেরা যেমন ভাল কর্ম করবে সন্তানদেরকেও সেইরুপ শিক্ষা দিবেন। এতে নিজের এবং সন্তানের উভয় লাভ হবে। আল্লাহ তাআলা ও খুশি হবেন। কর্ম আসে আগে ফল আসে পরে। তাহলে আগে যেটা আসে সেটাকে আমরা ভাল করবো। তাহলে প বলেছেন যখন মানুষ দুনিয়া হতে চলে যায় তখন তিনটে জিনিস তার কাছে আসে এবং তার কবরে তার সঙ্গী হয়
১) এলেম যা সে রেখে যায়। যার দ্বারা মানুষ উপকার পায়। যেমন কেহ কিতাব লিখে গেল আর লোকেরা ওটা থেকে উপকার পেতে থাকলো। কাউকে এলেম শিখে গেল, এভাবে অনেকদিন তারা ছাত্ররাও অন্যকে শেখালো এতে করে মৃত ব্যক্তি ও কিয়ামত পর্যন্ত এর ছওয়াব পেতে থাকবে।

২) যেকোনো সদকায়ে জারিয়া রেখে গেলে, যেমন মাদ্রাসা মসজিদ , কূপ খনন, পাবলিক টয়লেট বসানো ইত্যাদি। সে এই ছওয়াব  মৃত্যুর পরও পেতে থাকবে। 
৩) যে নেক সন্তান রেখে গেল সে তার জন্য দোয়া করতে থাকলো। পিতা মাতার চেষ্টায় শিক্ষা-দীক্ষার ফলে , সন্তান যা কিছু ভালো করে তার পিতামাতার আমলনামায় তা লিপিবদ্ধ হয়। মানুষ ইন্তেকাল করার পর তার সমস্ত আমল বন্ধ হয়ে যায়।কিন্তু এই তিনটি আমল আছে যা কোন দিন বন্ধ হবে না। তন্মধ্যে একটি হলো নেক সন্তান
 সমাপ্ত





About regulartechbd

Check Also

জিলহজ মাসের গুরুত্বপূর্ণ ফজিলত সমূহ।

  জিলহজ মাস মানে হজের মাস। হজের তিনটি মাস শাওয়াল, জিলকদ ও জিলহজ। এর মধ্যে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.