মিথ্যা ও গীবত এর ভয়ংকর পরিণাম

  

মিথ্যা ও গীবত এর ভয়ংকর পরিণাম
সমস্ত মুসলমানের জন্য মিথ্যা ও গীবত থেকে এমন ভাবে বেঁচে থাকা চাই, যেমনিভাবে মানুষ বাঘ ও সাপ থেকে বেঁচে থাকে। গীবত ও মিথ্যার বিষয় এতই মারাত্মক যে, এ বিষয় সমস্ত নেক কাজ কে নষ্ট করে দেয়। নেক কাজ ও নেক কাজ সম্পাদন কারীর মাঝে এই বিষক্রিয়া প্রতিবন্ধক হয়ে দাঁড়ায়। পক্ষান্তরে যার গীবত করা হয় সে গীবতকারীর ছওয়াব পেয়ে যায়। আর মিথ্যা তো এমন একটি গুনাহ যা অন্য কয়েকটি গুনাহের মূল।
মিথ্যাবাদী সম্পর্কে রাসূল (সা:) বলেন।
* মিথ্যাবাদী  কখনো মুমিন ব্যক্তি হতে পারে না।
অর্থাৎ এমনটি কল্পনাও করা যায় না যে একজন মুসলমান মিথ্যা বলতে পারে। পক্ষান্তরে গুনাহ এর প্রভাবে নেক কাজ থেকে মন উঠে যায়, ফলে ভালো কাজে মন বসেনা। ফজর ও এশার নামাজ খুব ভারী বোধ হয়। 

গীবত সম্পর্কে রাসূল (সা:) বলেন।

*গীবত করার মৃত ভাইয়ের মাংস খাওয়ার সমান।

আমি যার গীবত করব তার মন্দ কর্মের আমল আমার কাঁদে চলে আসবে, সুতরাং কি দরকার গীবত করে নিজের কষ্টে অর্জিত নেক আমল অন্যকে দেওয়া। তার সাথে আমার যদি এতই মোহাব্বত থাকে তবে কোরআন তেলোয়াত করে, নফল নামাজ পড়ে তার জন্য আল্লাহর নিকট প্রার্থনা করতে পারি। এতে আমারও কিছু উপকার হবে। অন্তত আমার আমলনামা টা নষ্ট হবে না। সুতরাং প্রত্যেক মুসলমানের গীবত থেকে বেঁচে থাকা চাই।

 রাসূল (সা:) আরো বলেন।

* মানুষের মিথ্যাবাদী সাব্যস্ত হতে এটাই যথেষ্ট যে, প্রত্যেক শোনা কোথায়ই তার সত্যতা যাচাই না করে অন্যকে বলে দেওয়া।


About regulartechbd

Check Also

জিলহজ মাসের গুরুত্বপূর্ণ ফজিলত সমূহ।

  জিলহজ মাস মানে হজের মাস। হজের তিনটি মাস শাওয়াল, জিলকদ ও জিলহজ। এর মধ্যে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.