নাসা কি সত্যিই চাঁদে গিয়েছিলো ?

নাসা কি সত্যিই চাঁদে গিয়েছিলো ?

 

1957 সালে পুরো পৃথীবিকে অবাক করে রাশিয়া মহাকাশে প্রথম স্যাটেলাইট উৎক্ষেপন করেন।

এবং 1961 সালে তারা স্পেসে প্রথম মানুষ পাঠায়, যা তাদের পৃথীবি শাসন করার দ্রোড়ে অনেক দুর এগিয়ে নিয়ে যায়।

পৃথীবি শাসন করার এই লড়াইয়ে ঠিকে থাকতে হলে যুক্তরাষ্ট্রকে এমন কিছু করে দেখানোর প্রয়োজন ছিলো যা তাদের রাশিয়া থেকে এগিয়ে রাখবে।

তাই তারা চাঁদে মানুষ পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয়। যে মিশনটির নাম দেওয়া হয় Apollo Eleven.

1969 সালের 21 জুলাই ঘটে যায় মানব সভ্যতার সবচে ঐতিহাসিক দিন, ঐ দিন পৃথীবির ফেরিয়ে মানুষ প্রথম চাঁদে পা রেখেছিলো।

Neil Armstrong এবং Buzz Aldrin এই দু’জন মানুষ প্রথমবার চাঁদের পৃষ্টে পা রাখতে সক্ষম হোন।

এদের সাথে আরো একজন মহাকাশচারী ছিলেন Michael colling যিনি Apollo Eleven এর অরবিটালে বসেছিলেন এবং চাঁদকে প্রদক্ষিন করেছিলেন।

এই স্পেস মিশনটি নাসা করেছিলেন, এবং এর মধ্যে কোন ত্রুটি ছিলোনা। এটি ছিলো নাসার এগার তম স্পেস মিশন।

Apollo Eleven মিশনটিকে লাইভ টেলিকাষ্ট করা হয়েছিলো, এবং কোটি কোটি মানুষ এই ঐতিহাসিক মহুর্তটিকে দেখছিলো। Apollo Eleven কে 16 জুলাই 1969 সালে saturn V রকেটের মাধ্যমে ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে উৎক্ষেপন করা হয়,

20 জুলাই 1969 এ Apollo Eleven এর লোনার মডিউল চাঁদের বুকে sea of tranquility নামক স্থানে ল্যান্ড করেছিলেন।

এই স্পেসক্যাপ্ট তিনটি ভাগে ভাগ ছিলো,
1) command module
2) service module
3) Lunar module

প্রথমে চাঁদের বুকে পা রাখেন Neil Armstrong. এবং এর 20 মিনিট পর Buzz Aldrin পাঁ রাখেন, তারা দুজন সেখানে 21 ঘন্টা 30 মিনিট সময় কাটান।

যুক্তরাষ্ট্রের এই বিজয় রাশিয়া মানতে পারেনি, এবং তারা Apollo Eleven কে ফেক প্রমান করতে বিভিন্ন মত তুলে ধরেন।

একজন রাশিয়ান থিওরিষ্ট Yury Mukhin তিনি তার পুরো জীবন কাটিয়ে দেন শুধু Apollo Eleven mission কে ফেক প্রমান করতে।

তিনি দাবি করেন, চাঁদের যে ভিডিও ফুটেজ দেখানো হয়েছে তা আমাদের পৃথীবিতেই রের্কড করা, কিন্তু তা সে প্রমান করতে ব্যর্থ হোন।

@S M Bashar

About regulartechbd

Check Also

শতাব্দীর অস্ত্রোপচারের নির্মম

উনবিংশ শতাব্দীর অস্ত্রোপচারের নির্মম বাস্তবতা

একুশ শতকের আধুনিক মেডিকেল সাইন্স বনাম উনবিংশ শতাব্দীর অস্ত্রোপচারের নির্মম বাস্তবতা!   গত কয়েক দশকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *